বাবরি মসজিদ নিয়ে মুখ না খোলার নির্দেশনা

বাবরি মসজিদ নিয়ে মুখ না খোলার নির্দেশনা
আজ শনিবার ভারতের সুপ্রিম কোর্টে বহু প্রতীক্ষিত অযোধ্যার বাবরি মসজিদ ও রাম মন্দির নিয়ে করা মামলার রায় ঘোষণা করা হচ্ছে। দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে ঐতিহাসিক এই রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে এরই মধ্যে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে প্রশাসন।

যদিও বাবরি মসজিদ মামলার রায় নিয়ে দলের সকল নেতা-কর্মীকে মুখ না খোলার নির্দেশ দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী এবং তৃণমূল কংগ্রেসের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

শুক্রবার  কলকাতার তৃণমূল ভবনে বর্ধিত ওয়ার্কিং কমিটির একটি বৈঠক আয়োজন করা হয়। যেখানে দলের বিধায়ক ও সাংসদদের বিতর্কিত এ বিষয়টি নিয়ে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেন তিনি।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেন, ‘অযোধ্যার বাবরি মসজিদ ও রাম মন্দির নিয়ে আদালতের রায় ঘোষণার পর সাংবাদিকদের কাছে দলের কোনো নেতা মুখ খুলতে পারবেন না।’

তিনি বলেছেন, ‘মিডিয়ার সামনে আমাদের এত কথা বলার কী আছে! বাবরি মসজিদ নিয়ে কেউ যেন কোনো কথা না বলেন, এবার আমি সেটাই জানাতে চাই।’

এর আগে গত ১৬ অক্টোবর ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন ৫ সদস্যের একটি যৌথ বেঞ্চ অযোধ্যা জমি বিতর্কের শুনানি সম্পন্ন করেন। তবে নিরাপত্তার স্বার্থে সে সময় আর রায় ঘোষণা করা হয়নি।

এ দিকে গত শুক্রবার (৮ নভেম্বর) রাতে প্রধান বিচারপতি গগৈ রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে প্রশাসনের সর্বোচ্চ কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। এমনকি উত্তরপ্রদেশের মুখ্যসচিব এবং পুলিশ প্রধানের সঙ্গেও তার বিশেষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। মূলত সেই বৈঠকেই গগৈ অন্য বিচারকদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে তিনি অযোধ্যা মামলায় রায় ঘোষণার সিদ্ধান্ত নেন।

অপর দিকে রায় ঘোষণার পর উত্তরপ্রদেশসহ গোটা ভারতে যাতে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি না হয় সে জন্য এরই মধ্যে গোটা দেশের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। এমনকি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে সব রাজ্যে বিশেষ সতর্কতাও জারি করতে বলা হয়েছে।

যদিও তখন থেকেই গুঞ্জন উঠছিল আগামী ১৭ নভেম্বর অবসরে যেতে পারেন রঞ্জন গগৈ। যে কারণে এর আগেই যে কোনো দিন ঐতিহাসিক এই মামলাটির রায় হতে পারে বলে শোনা যাচ্ছিল। মূলত এসব বিষয় বিবেচনা করেই অতি স্পর্শকাতর মামলার রায় ঘোষণার প্রস্তুতি সম্পন্ন করে প্রশাসন।

নাবা/ডেস্ক/কেএইচ/

রিলেটেড নিউজঃ