‘আপনি তো আমাদের বিশেষ অতিথি’

‘আপনি তো আমাদের বিশেষ অতিথি’
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান গতবার মার্কিন সফরে যাওয়ার সময় অন্য যাত্রীদের মতোই সাধারণ বিমানে সফর করেছিলেন ইমরান। এর মূল কারণ হচ্ছে দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করা।

এবার রাষ্ট্রসংঘের ৭৪তম সাধারণ সম্মেলনে যোগ দিতে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের বিশেষ বিমানে করে যুক্তরাষ্ট্রে গেলেন। 

শনিবার সৌদি যুবরাজের ‘বিশেষ বিমান’-এ আমেরিকায় পা রাখেন তিনি। আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানানো হয়েছে, ইমরান খানকে বাণিজ্যিক ফ্লাইট ব্যবহার করতে নিষেধ করেছেন যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। এছাড়াও সৌদি যুবরাজ নাকি ইমরান খানকে বলেছেন, ‘আপনি তো আমাদের বিশেষ অতিথি। আপনি আমাদের বিশেষ বিমানে যুক্তরাষ্ট্র যাবেন।’

পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আমেরিকা পৌঁছে গিয়েছেন। কাশ্মীরে কী হচ্ছে তা গোটা বিশ্বের সামনে তুলে ধরাই সাতদিনের এই সফরের প্রধান উদ্দেশ্য হবে।’ যুক্তরাষ্ট্র যাওয়ার আগে দু’দিনের সফরে সৌদি আরবে যান পাক প্রধানমন্ত্রী। বস্তুত কাশ্মীর ইস্যুতে সৌদির সমর্থন নিতেই ইমরান খান সেখানে গিয়েছিলেন বলে জানা যাচ্ছে। যদিও সৌদি বহু আগেই বিষয়টিকে ভারতের অভ্যন্তরীণ ইস্যু বলে পাশ কাটিয়ে গিয়েছে।

গত ৫ অগাস্ট কেন্দ্র সরকার কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নেয়। এরপর থেকেই ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা শুরু হয়। পাকিস্তানের পক্ষ থেকে বলা হয়, কাশ্মীরিদের পাশে থাকবে পাকিস্তান, সেইসঙ্গে ভারতকে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা ফিরে দিতে বলে।

অন্যদিকে ভারতের পক্ষ থেকে বারবারই স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে, কাশ্মীর তাদের অভ্যন্তরীণ ইস্যু। এ নিয়ে কারো নাক গলানোর অধিকার নেই। তবে পাকিস্তান এখনও হাল ছাড়তে নারাজ। নানাভাবে সমর্থন জোগাড় করার চেষ্টা চালিয়েই যাচ্ছেন পাক প্রধানমন্ত্রী।

নাবা/ডেস্ক/কেএইচ/

রিলেটেড নিউজঃ

    মতামত দিন