১৪ দিন পার হলেও খোঁজ নেই বিক্রমের

১৪ দিন পার হলেও খোঁজ নেই বিক্রমের

ভারতের মহাকাশযান ‘চন্দ্রযান-২’ এর হারিয়ে যাওয়া ল্যান্ডার বিক্রমকে ১৪ দিনের অভিযানে চাঁদের পৃষ্ঠে পাঠানো হয়েছিল। 

আজ শনিবার সেই সময়সীমা শেষ হয়েছে। কিন্তু বিক্রেমের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে ভারতের মহাকাশ সংস্থা ইসরো।

ইসরো’র প্রধান কে শিভাম জানিয়েছেন, চন্দ্রযান-২ মহাকাশে খুব ভালো ভাবে কাজ করছে। সেখানে অরবিটারে থাকা মোট আটটি যন্ত্রের সবগুলোও ঠিক ঠিক মত চলছে। কিন্তু ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এদিকে শনিবার চাঁদের মাটিতে পুরোপুরি রাত নেমে এসেছে। সেই সঙ্গে তাপমাত্রাও কমতে কমতে নেমে এসেছে শূন্য ডিগ্রির প্রায় ২০০ সেলসিয়াস নিচে। আগামী ১৪ দিন চাঁদের মাটিতে এই কনকনে ঠাণ্ডার রাতই থাকবে। 

টানা দুই সপ্তাহ এত শীতল পরিবেশে টিকে থাকা বিক্রমের পক্ষে সম্ভব নয়। তাই, ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে আর যোগাযোগ সম্ভব নয় বলে মনে করো হচ্ছে। 

৪৭ দিনের যাত্রা শেষে গত ৭ সেপ্টেম্বর প্রথম প্রহরে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে নামার কথা ছিল চন্দ্রযান-২ এর ল্যান্ডারটির। কিন্তু চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে মাত্র ২ দশমিক ১ কিলোমিটার দূরে থাকতে বিক্রমের সঙ্গে ইসরোর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

চাঁদ ঘিরে ঘুরতে থাকা চন্দ্রযানের অরবিটার হারিয়ে যাওয়া বিক্রমের একটি থার্মাল ইমেজ পাঠালে জানা যায় ল্যান্ডার বিক্রম চাঁদের পিঠেই আছড়ে পড়েছে।

মিশনের শুরুতেই ইসরো জানিয়েছিল, চাঁদের দক্ষিণের যে অন্ধকার অংশে বিক্রমের পৌঁছানোর কথা সেখানে পৌঁছে রোবটযানটি এক চন্দ্রদিন পর্যন্ত সূর্যের আলো পাবে; যা পৃথিবীর ১৪ দিনের সমান।

ওই ১৪দিন শেষ হয়ে এখন চাঁদে শুরু হয়েছে দীর্ঘ শীতের রাত। শীতের রাতে চাঁদের বুকে তাপমাত্রা মাইনাস ২০০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে নেমে যায়। ভয়াবহ ওই ঠাণ্ডায় বিক্রমের সব যন্ত্র জমে কঠিন বরফের ভেতর আটকে যাবে।

নির্ধারিত লক্ষ্যের মাত্র ৫০০ মিটার দূরে হার্ড ল্যান্ডিং হয় বিক্রমের। তারপর থেকেই ল্যান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগের আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েগেছে ইসরো। কিন্তু, কোনোভাবেই যোগাযোগ স্থাপণ করা সম্ভব হয়নি। এ অবস্থায় বিক্রমকে খোঁজার হাল ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা যেকোনো সময়ে আসতে পারে।

নাবা/ডেস্ক/ওমর

    মতামত দিন