হাবিপ্রবিতে দিনব্যাপী বিতর্ক উৎসব

হাবিপ্রবিতে দিনব্যাপী বিতর্ক উৎসব

‘যুক্তির আহবানে মুক্তির কলতান, বিতর্কের হাত ধরে গর্জুক শতপ্রাণ’ এই মূলমন্ত্রকে প্রতিপাদ্য করে দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সফলভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে দিনব্যাপী বিতর্ক উৎসব। ডিবেটিং সোসাইটি অব এইচএসটিইউ প্রথম বারের মতো সফলভাবে আয়োজন করলো এমন প্রতিযোগিতা।

এতে অংশ নিয়েছে রংপুর বিভাগের আট জেলার স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতার্কিকরা। গতকাল শুক্রবার সকাল ৯টায় এক বর্ণাঢ্য র‌্যালির মধ্য দিয়ে শুরু হয় বিতর্ক উৎসবের। রংপুর বিভাগের ৭০ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয় ওই র‌্যালিতে। 

বিতর্ক উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম ও বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ডা. মোঃ ফজলুল হক, হিসাব শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ শাহাদত হোসেন খান লিখন, ডিবেটিং সোসাইটি অব এইচএসটিইউ’র প্রধান উপদেষ্টা প্রফেসর ড. শ্রীপাতি সিকদার, দিনাজপুর জেলার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিবেটিং সোসাইটি অব এইচএসটিইউ এর সভাপতি জাহিদুল ইসলাম শিহাব। 

প্রধান অতিথি তাঁর শুভেচ্ছা বক্তব্যে বলেন, “ বিতর্ক এমন একটি বিষয় যা মানুষকে পরিপাটি করে গড়ে তোলে। বিতর্কের মাধ্যমে মানুষ সামাজিক ভাবে সচেতন হয়ে উঠে। বিতার্কিকরা ন্যায় অন্যায় তফাৎ যেমন করতে পারে ঠিক তেমনি সমাজের দায়বদ্ধতা নিয়ে কথা বলতে পারে “। 

এসময় উপাচার্য বিতর্ক উৎসব-২০১৯ এর শুভ উদ্বোধন করেন। দিনব্যাপী বিতর্ক উৎসবে মোট পাঁচ ধরনের বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ছিলো সনাতনী বিতর্ক, বারোয়ারি বিতর্ক, পেশাজীবী বিতর্ক,শো ডিবেট ইত্যাদি। বিতর্কের পাশাপাশি কুইজ প্রতিযোগিতা ছিল সকল বিতার্কিকদের জন্য উন্মুক্ত।

এদিকে সনাতনী বিতর্ক প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয় এনডিএফবিডি স্কুল দল ও রানারআপ হয় রংপুর জিলা স্কুল। এছাড়া কলেজ পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয় নীলফামারি সরকারি কলেজ। অন্যদিকে, বিতর্ক উৎসবের সমাপনী অংশে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোঃ নুরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার, হাবিপ্রবির আইআরটি শাখার পরিচারক প্রফেসর ড. মোঃ তারিকুল ইসলাম, রংপুর রেঞ্জের বিপিএম অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ মজিদ আলী, দিনাজপুর জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক জয়নাল আবেদিন। এ সময় সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম।


অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে আগত অতিথিদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন আয়োজকবৃন্দ। এসময় বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় নির্বাচিত সদস্যদেরকে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন অনুষ্ঠানে আগত অতিথিরা। 

উল্লেখ্য, ডিবেটিং সোসাইটির পক্ষ থেকে সংগঠনটির প্রধান উপদেষ্টা প্রফেসর ড. শ্রীপাতি সিকদারকে সকালে উপাচার্য আজীবন সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত প্রভাষক ও ডিবেটিং সোসাইটির সাবেক সভাপতি সুভ্রত প্রামাণিক, বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনিস্টিটিউটের সাইন্টিফিক অফিসার কৃষিবিদ তপন কুমার রায় ও অনামিকা। অনুষ্ঠান শেষে বিতার্কিকদের মাঝে সার্টিফিকেট তুলে দেয়া হয়।


নাবা/ডেস্ক/তারেক

    মতামত দিন