রাজধানীতে লাগামহীন সবজির বাজার

রাজধানীতে লাগামহীন সবজির বাজার

বর্ষা মৌসুম শেষ হয়ে শীত মৌসুম ঘনিয়ে আসছে। এর মধ্যেই বাজারে উঠতে শুরু করেছে শীতকালীন আগাম সবজি। সরবরাহ পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকলেও সবজির মূল্য তুলনামূলক কিছুটা বেশি। পেঁপে আর মিষ্টি কুমড়া ছাড়া ৫০ টাকার নিচে মিলছে না কোনো সবজি। শীত মৌসুমের আগাম সবজি বাজারে আসতে শুরু করলেও বাজারে এখনো লাগামহীন সবজির মূল্য বরং প্রতি সপ্তাহেই বেড়েই চলেছে কোনো না কোনো সবজির দাম।

আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের কৃষি মার্কেট, টাউন হল, কারওয়ান বাজার ও খিলগাঁও বাজার ঘুরে দেখা যায় প্রায় প্রতিটি সবজির বেশ চওড়া।

সবজির মূল্য বেশি হওয়ার কারণ হিসেবে ব্যবসায়ীরা বলছেন, বর্ষা মৌসুমে দেশের বিভিন্ন জেলায় বন্যা হয়েছে। আর এই বন্যার ফলে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন সাধারণ কৃষকরা। বন্যার ক্ষতি এখনো কাটিয়ে উঠে তারা চাহিদা মতো সবজি বাজারে পাঠাতে পারেননি। তাই সবজির মূল্য বেশি।


কথা হয় রাজধানীর খিলগাঁও বাজারের সবজি বিক্রেতা মো. সিদ্দিকুরের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘গত সপ্তাহের তুলনায় সবজির মূল্য বেশি। তবে শীতের সবজি এখনো পর্যাপ্ত পরিমাণে আসতে শুরু করেনি তাই বাজারে আসা শীতের আগাম সবজির মূল্য তুলনামূলক বেশি।

তিনি যোগ করেন, ‘শীতের আগাম সবজির সঙ্গে চড়া মূল্যে বিক্রি হচ্ছে লাউ, টমেটো, করলা, গাজর, ঝিঙে, বরবটি, বেগুন, পটল, ঢেঁড়স, ও ধুন্দলসহ সব ধরনের সবজি। আজ খুচরা বাজারে পাকা টমেটো বিক্রি হচ্ছে ৯০-১০০ টাকা কেজিতে। গাজর বিক্রি হচ্ছে ৭০-৮০ টাকা কেজিতে। করলার ৬০-৭০ টাকা, বরবটি ৭০-৮০ টাকা, গোল বেগুন ৭০-৮০ টাকা, গোল বেগুন সাদা ৬০-৭০, লম্বা বেগুন ৬০-৭০, চিচিঙ্গা, ঝিঙা ও ধুন্দল ৫০-৬০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। একই দামে বিক্রি হচ্ছে কাঁকরোল, শশা ও কচুর লতি।

তবে লাগামহীন বাজার-দরের মধ্যে কিছুটা কম মূল্যে বিক্রি হচ্ছে পেঁপে ও মিষ্টি কুমড়া। পেঁপে আগের সপ্তাহের মতো বিক্রি হচ্ছে ২০-২৫ টাকা কেজিতে। আর মিষ্টি কুমড়ার ফালি পাওয়া যাচ্ছে ২০-২৫ টাকায়। এছাড়া ফুলকপি ৪০-৫০ টাকা ও পাতাকপি ৩৫-৪৫ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে।

এদিকে মুল্য বেড়েছে ডিমের বাজারেও। প্রতি হালি ফার্মের মুরগির ডিম বিক্রি হচ্চে ৩২-৩৫ টাকায়। হাঁসের ডিম বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৫০ টাকায়। স্থিতিশীল রয়েছে গরু আর খাঁসি মাংসের বাজার। গত সপ্তাহের মতো এ সপ্তাহেও গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৫৫০ থেকে ৬০০ টাকায়। এছাড়া খাঁসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৭০০ টাকা দরে।

নাবা/ডেস্ক/কেএ


রিলেটেড নিউজঃ

    মতামত দিন