‘আওয়ামী লীগের আছে শুধু চোখ রাঙানি’

  • প্রকাশিতঃ 2019-08-02 12:20:49
‘আওয়ামী লীগের আছে শুধু চোখ রাঙানি’

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আমরা এমন এক নিপীড়ক সরকারের অধীনে বসবাস করছি, যাদের মানবিকতা নেই, জনগণের প্রতি ন্যূনতম ভালোবাসা ও দায়িত্ববোধ নেই, আছে শুধু চোখ রাঙানি ও অবৈধ ক্ষমতার দাপট। 

তিনি বলেন, প্রকৃতপক্ষে জনগণের ভোটে নয়, বরং নির্বাচন কমিশন, জনপ্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে কব্জায় নিয়ে ৩০ ডিসেম্বরের আগের রাতে ভোট চুরির মাধ্যমে জোর করে যারা রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করে, তাদের কাছে জনস্বার্থের কিবা মূল্য আছে। 

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নিজেদের অপকর্ম বিএনপির নেতাকর্মীদের চাপাচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন এই নেতা।

শুক্রবার সকালে নয়াপল্টনে মিছিল শেষে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মন্তব্য প্রদানের সময় তিনি বলেন, এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে যখন মানুষ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে, ডেঙ্গুর ব্যাপক বিস্তারে দেশবাসী যখন ভয়ে শঙ্কিত, তখন এই ভয়ঙ্কর মহামারী মোকাবেলায় জনবিচ্ছিন্ন সরকারের মাথাব্যথা নেই।

দেশব্যাপী খুন, নারী-শিশু ধর্ষণ এবং ডেঙ্গুর ভয়াবহ প্রকোপ বৃদ্ধি সব কিছুকেই সরকারের মন্ত্রী-নেতারা গুজব বলছেন। বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়কে গুজব ছড়ানোর কারখানাও বলা হচ্ছে বলে জানান রিজভী।

রিজভী বলেন, আওয়ামী নিজেদের অপশাসন বেপরোয়া গতিতে চলমান রাখতে সব অপকর্ম বিএনপিসহ বিরোধী দলের ওপর চাপিয়ে দিয়ে মনে করছে কেউ বুঝি কিছু টের পাচ্ছে না।

‘কিন্তু সব অপকর্মের জবাব দিতে জনগণ ভেতরে ভেতরে প্রস্তুতি নিচ্ছে, সে খবর সরকার জানে না। আওয়ামী সরকারের জুলুম থেকে রক্ষা পেতে জনগণ রাজপথে ধেয়ে আসছে।’

বিএনপির এ নেতা আরও বলেন, ডেঙ্গু সমস্যা সমাধানে সরকার চরমভাবে শুধু ব্যর্থই নয়, এদের আমলে বছর বছর বৃদ্ধি পাচ্ছে মশাবাহিত রোগ ও রোগীর সংখ্যা। ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা এবারে সব বছরের চেয়ে অত্যধিক বেশি।

ডেঙ্গু মোকাবেলায় সরকারের ব্যর্থতা উল্লেখ করে রিজভী বলেন, মশা নিধনে কোটি কোটি টাকা খরচ করা হচ্ছে অথচ সিটি কর্পোরেশনের ওষুধে মশা মরছে না। কোটি টাকা লোপাটে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন এখন নিজেরাই গারবেজে পরিণত হয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারের রোষানলের শিকার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। শেখ হাসিনার কাছে প্রতিহিংসার রাজনীতিই মুখ্য। তাই তার ব্যক্তিগত আক্রোশের শিকার বেগম খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি দেয়া না হলে সরকারের পরিণতি শুভ হবে না।

এর আগে কারাবন্দি খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি নয়াপল্টনস্থ বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু হয়ে নাইটিঙ্গেল মোড় ঘুরে আবারও বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিকট এসে শেষ হয়।

বিক্ষোভ মিছিলে নেতৃত্ব দেন বিএনপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। মিছিলে জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস এবং সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদসহ সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এ মিছিলের আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল।

নাবা/ডেস্ক/কেএইচ/

রিলেটেড নিউজঃ

    মতামত দিন