‘শুধু রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী ভিআইপি, বাকিরা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী’

  • প্রকাশিতঃ 2019-07-31 17:50:39
‘শুধু রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী ভিআইপি, বাকিরা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী’

একজন যুগ্ম সচিবের জন্য অপেক্ষা করায় মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ঘাটে বিলম্বে ফেরি ছাড়ায় স্কুল ছাত্র তিতাসের মৃত্যুর ঘটনায় করা রিটের শুনানিতে উচ্চ আদালত বলেছেন, রাষ্ট্রপতি আর প্রধানমন্ত্রী ছাড়া দেশে কোনো ভিআইপি নেই।

আজ বুধবার সংশ্লিষ্ট যুগ্ম সচিব ও ফেরির ম্যানেজারের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে গতকাল মঙ্গলবার রিটটি করা হয়।

হাইকোর্টের বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

রিটে তিতাসের মৃত্যুর ঘটনায় স্বতন্ত্র তদন্ত কমিটি গঠন, তিতাসের পরিবারকে তিন কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশনা চাওয়া হয়। এ ছাড়া ফেরিঘাটে রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্সকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়ার আদেশ চাওয়া হয়।

মানবাধিকার সংগঠন লিগ্যাল সাপোর্ট অ্যান্ড পিপলস রাইটসের চেয়ারম্যানের পক্ষে জনস্বার্থে রিটটি দায়ের করেন আইনজীবী জহির উদ্দিন লিমন।

রিটে বিবাদী করা হয় নৌ মন্ত্রণালয়ের সচিব, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান, যুগ্ম সচিব আবদুস সবুর মণ্ডল, মাদারীপুরের ডিসি, পুলিশ সুপার, কাঁঠালবাড়ি ফেরি ঘাটের ব্যবস্থাপক সালাম হোসাইন মিয়া ও কাঁঠালবাড়ি থানার অফিসার ইনচার্জকে।

প্রসঙ্গত, মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আঘাতপ্রাপ্ত নড়াইলের কালিয়া পৌর এলাকার একটি স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র তিতাস ঘোষকে (১১) আশংকাজনক অবস্থায় গত ২৫ জুলাই রাতে অ্যাম্বুলেন্সযোগে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয় তার পরিবার। মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ঘাটে অ্যাম্বুলেন্সটি ফেরিতে উঠলে ফেরি কর্তৃপক্ষ জানায় সরকারের এটুআই প্রকল্পের যুগ্ম সচিব সবুর মণ্ডলের গাড়ি আসলে ফেরি ছাড়া হবে। তার পরিবার ফেরির কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বললেও তারা গুরুত্ব না দিয়ে তিন ঘণ্টা অপেক্ষার পর রাত ১১টায় ফেরিটি শিমুলিয়া ঘাটের উদ্দেশে রওনা দেয়। এরই মধ্যে তিতাসের মৃত্যু হয়।

নাবা/ডেস্ক/তারেক

    মতামত দিন