৮ হাজার টাকায় প্রতিদিন সুদ ৫শ টাকা! তথ্য দিতে এসআইয়ের লুকোচুরি

অতিরিক্ত সুদ আদায়ের প্রতিবাদ করায় মারধর

উপজেলা করেসপন্ডেন্ট। নাগরিক বার্তা.কম
মতলব : এ যেন বড়লোক হওয়ার সর্টকাট রাস্তা। ৮ হাজার টাকায় প্রতিদিন সুদ দিতে হয় ৫শ টাকা। এমনই এক সুদখোরের চক্রে পড়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্ম হত্যার চেষ্টা করেছে এক রিক্সা ভ্যান মেকার। অতিরিক্ত সুদ আদায়ের বিষয়ে প্রতিবাদ করতে গেলে মারধরের শিকার হন এক জন।

সরেজমিনে জানা যায়, মতলব পৌর এলাকার সাত্তার মাষ্টার মোড়ে রিক্সা ভ্যান মেকার রহমান ব্যবসায়ী প্রয়োজনে দক্ষিণ বাইশপুরের দুই সুদ ব্যবসায়ী হান্নান বেপারীর ছেলে রিপন এবং মৃত বাবুল বেপারীর ছেলে কাইয়ূমের কাছ থেকে দৈনিক ৫শ টাকা সুদে ৮ হাজার টাকা নেয়। টাকা নেওয়ার পর রহমান সুদের টাকা দিতে পারলেও পরবর্তীতে তা না দিতে পারায় হুমকি দিয়ে যায় ওই সুদ চক্রের লোকজন। সুদ চক্রের অব্যাহত চাপে পড়ে এক সময় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্ম হত্যার চেষ্টা বলে জানায় তার পরিবারের সদস্যরা।

এদিকে সুদের টাকার জন্য এক গরীব লোক আত্মহত্যা চেষ্টা করেছে জেনে ওই সুদ চক্রের দুই কারবারির কাছে প্রতিবাদ জানায় একই গ্রামের মৃত আকবর আলী বেপারীর ছেলে তাফাজ্জল বেপারী। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গত ১ সেপ্টেম্বর তার উপর হামলা চালায় সুদ কারবারি কাইয়ূম, রিপন ও তার তিন ভাই জসিম, ওয়াসিম ও শরিফ। হামলায় তাফাজ্জল বেপারীর মাথায় আঘাত প্রাপ্ত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্বার করে প্রথমে মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে এনে ভর্তি করান।

হামলার বিষয়ে মতলব পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও আহত তাফাজ্জল বেপারীর ভাতিজা আবুল বাশার বলেন, রহমানের বিষয়টি আমার চাচা তাদের কাছে জানতে চাইলে তারা মারধর করে। বর্তমানে তিনি চাঁদপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সুদ আদায়ের বিষয়ে রহমান বাদী হয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেন যা তদন্ত করছেন এসআই রুহুল আমিন।

রহমানের অভিযোগের বিষয়ে থানার এসআই রুহুল আমিনের কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি তথ্য জানাতে লুকোচুরি করেন। এছাড়াও এই এসআইয়ের কাছে কোন বিষয়ে জানতে চাইলে, তিনি জানেন না, জেনে জানাবো, বলতে পারবো না বলে এড়িয়ে যান। থানা সূত্রে জানা যায়, এসআই রুহুল আমিন এর আগেও মতলব দক্ষিণ থানায় কর্মরত ছিলেন।
পরে চাঁদপুর জেলা পুলিশ সুপার মো.জিহাদুল কবির এর কাছে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার হবে বলে জানান।

এ বিষয়ে রিপনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি সমাধান হয়ে যাবে বলে এড়িয়ে যান।

এম.এম.আ/ফ.রা.ই/