সুদানে বিক্ষোভ অব্যাহত: গণ গ্রেফতার, অসহযোগ আন্দোলনের ঘোষণা

সুদানে সেনা শাসনের বিরুদ্ধে অসহযোগ আন্দোলনের ডাক দিয়েছে গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক সুদানিজ প্রফেশনালস অ্যাসোসিয়েশন (এসপিএ)। রোববার থেকে এ অসহযোগ আন্দোলন শুরু হবে এবং সুদানে গনতান্ত্রিক সরকার না আসা পর্যন্ত তা চলতে থাকবে।

মধ্যস্থতা প্রচেষ্টায় জড়িত থাকা তিন বিরোধীদলীয় নেতাকে আটকের পর এ ঘোষণা দেওয়া হলো। সুদানের দীর্ঘদিনের প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরকে উৎখাতের জন্য গত বছরের ডিসেম্বর থেকে সেদেশে বিক্ষোভ শুরু হয়। ওই বিক্ষোভের মুখে গত ১১ এপ্রিল ক্ষমতাচ্যুত হন তিনি।

তখন থেকেই সুদানের ক্ষমতায় রয়েছে সেনা পরিচালিত ট্রানজিশনাল মিলিটারি কাউন্সিল (টিএমসি)। সুদানে বেসামরিক সরকারের হাতে ক্ষমতা ফিরিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয় সেনাবাহিনী।

তবে ক্ষমতা কাঠামো থেকে বশির ঘনিষ্ঠদের সরানো এবং বেসামরিক সরকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে বিক্ষোভকারীরা খার্তুমে অবস্থান ধর্মঘট চালিয়ে যেতে থাকে। সোমবার (৩১ মে) বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালায় নিরাপত্তা বাহিনী।

দেশজুড়ে চালানো সেনা অভিযানে নিহত হয় শতাধিক মানুষ। আর শুক্র (৭ জুন) ও শনিবার (৮ জুন) গ্রেফতার হন বিরোধীদলীয় তিন রাজনীতিবিদ।

এর পরপরই সেনা শাসনের  বিরুদ্ধে দেশজুড়ে অসহযোগ আন্দোলনের ডাক দেয় সুদানিজ প্রফেশনালস অ্যাসোসিয়েশন (এসপিএ)। সংগঠনের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘রবিবার থেকে অসহযোগ আন্দোলন শুরু হবে।

সুদানে গনতান্ত্রিক সরকার  রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে নিজেদের ক্ষমতায় আসীন হওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পরই এ আন্দোলন শেষ হবে।’ বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘অসহযোগ এমন এক শান্তিপূর্ণ কর্মকাণ্ড যা বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী অস্ত্রগুলোকেও নতি স্বীকার করতে বাধ্য করে।’ সুত্র: বিবিসি।

নাবা/ডেস্ক/তানিয়া রাত্রি