শাহরাস্তিতে গৃহবধু মৃত্যুর ঘটনায় স্বামী আটক

শাহরাস্তি: শাহরাস্তিতে গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যুর অভিযোগে স্বামী ওসমান গনিকে (২৭) আটক করেছে থানা পুলিশ। শনিবার দুপুরে পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের সূয়াপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় নিহতের পিতা বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ওই গ্রামের গাজি বাড়ির ইয়াছিন গাজির পুত্র ওসমান গণির সাথে পাশ^বর্তি হাজিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম হাটিলা হাজী মন্নান মাস্টারের বাড়ির মোঃ হোসেনের মেয়ে শিউলি আক্তারের (২৫) শরীয়ত মোতাবেক বিবাহ হয়। সংসার জীবনে তাদের নিরব (দেড় বছর) নামে একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। বিবাহের পর হতে বিভিন্ন সময় যৌতুকের জন্য স্বামীর পরিবারের লোকজন শিউলিকে মারধর করতো। ইতোপূর্বে স্থানীয়রা এ নিয়ে বেশ ক’বার সালিশ বৈঠক করে মীমাংসা করে। ঘটনার দিন পূর্বের ন্যায় যৌতুকের জন্য মারধর করে হত্যার করে ঘরের আড়ার সাথে ওড়না জড়িয়ে ঝুলিয়ে রাখে। পরে থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ শহিদুল ইসলাম, উপ-পরিদর্শক (এসআই) কুতুব উদ্দিন খান লিয়ন সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা মোঃ হোসেন বাদি হয়ে শিউলি আক্তারের স্বামী ওসমান গনিকে প্রধান আসামি করে শাহরাস্তি থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার অপর আসামীরা হলেন শিউলির শশুর ইয়াছিন গাজী, ননদ রেহানা আক্তার, ভাসুর মোঃ কাদের ও শাশুড়ী জাহানারা বেগম।

নিহতের বাবা মোহাম্মদ হোসেন অভিযোগে উল্লেখ করেন, তার মেয়েকে শশুর বাড়ির লোকজন প্রায়ই যৌতুকের জন্য মারধর করতো। যৌতুকের জন্য তার মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে মর্মে তিনি দাবী করেন।

শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ শাহ আলম জানান, পুলিশ ওসমান গনি কে আটক করেছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। অধিকতর তদন্ত করে এটি হত্যা না আত্মহত্যা সে বিষয়ে পরবর্তি প্রদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।
এমএমএ/