মাকে চিকিৎসা করাতে গিয়ে ডাক্তারের মারধরের শিকার কিশোর (ভিডিও সহ)

অসুস্থ মাকে মেঝে থেকে হাসপাতালের বিছানায় তোলায় কিশোর সন্তানকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল ও বেধড়ক পেটানো হয়েছে। এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এখন ভাইরাল। ঘটনাটি বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার। মারধরকারী ব্যক্তি হচ্ছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. আনোয়ার উল্লাহ।

সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঘটনাটি ঘটে। সেখানে উপস্থিত কেউ একজন মারধরের ঘটনা মোবাইলে ভিডিও করে ফেসবুকে পোস্ট করেন। ভিডিওটি মুহূর্তের মধ্যে নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় শুরু হয়। শেয়ার করে চিকিৎসকের শাস্তি দাবি করছেন অনেকে।

মারধরের শিকার ওই কিশোরের নাম মো. জিলানী। সে পাথরঘাটা উপজেলার কাকচিড়া এলাকার মো. নেছার উদ্দিনের ছেলে।

৫৬ সেকেন্ডের ভিডিওটিতে দেখা যায়, ডা. আনোয়ার উল্লাহ তেড়ে এসে ওই কিশোরকে থাপ্পড় মারতে থাকেন। হাসপাতালের নার্স, কর্মী ও চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের সামনে প্রকাশ্যে মেরে কিশোরকে আহত করেন চিকিৎসক। এ সময় হাতে স্যালাইনসহ এক নারী ডা. আনোয়ারকে দমানোর চেষ্টা করলে ব্যার্থ হন। বাধা উপেক্ষা করে জিলানীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও মারতে থাকেন তিনি। দেখা যায় মারধরের সময়ও কিশোর প্রতিবাদ করে বলছিলো- ‘অপরাধ করেছেন আপনারা, আর কতা কইলে মোগো শাস্তি।’

এ বিষয়ে ওই কিশোর বলছে, তার মা অসুস্থ হয়ে পড়লে সোমবার সকাল ১০টার দিকে অজ্ঞান অবস্থায় পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। হাসপাতালে নেয়ার পর এক ঘণ্টায়ও তার মায়ের কাছে কোনো চিকিৎসক বা নার্স আসেননি। মায়ের কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে খালি পেয়ে একটি বিছানায় তোলে। এ সময় একজন নার্স তাকে নিষেধ করেছিল। কিছু সময় পর ডা. আনোয়ার উল্লাহ এসে অতর্কিত তাকে গালিগালাজ ও মারধর করে।

ঘটনা প্রসঙ্গে ডা. আনোয়ারের মন্তব্য, নারী ওয়ার্ডে এক কিশোর চিৎকার করছে শুনে সেখানে যাই। ওই কিশোরের কথা বলি। এসময় আমি মোবাইলে কথা রেকর্ড করতে চাইলে সে মোবাইল ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। তখন তাকে মারধর করি।

এদিকে পাথরঘাটা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতিমা পারভীন বলেন, ডা. আনোয়ার উল্লাহর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আগেও শুনেছি। কিন্তু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক সংকটের কারণে তখন কিছু বলিনি। এবার তার শাস্তির দাবিতে সোচ্চার হবো।

বরগুনার জেলা প্রশাসক কবির মাহমুদ বলেন, মৌখিকভাবে ঘটনা শুনেছি। চিকিৎসক এটা করে থাকলে ঠিক করেননি। খোঁজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নাবা/১৪মে/তারেক