ভারতের প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ

যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ-এর বিরুদ্ধে। অভিযোগটি করেছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্টের ৩৫ বছর বয়সী এক সাবেক নারী কর্মী।

শুক্রবার তিনি এই অভিযোগ করেন বলে একাধিক স্থানীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার।

সুপ্রিম কোর্টের ২২ জন বিচারককে লেখা চিঠিতে এই নারী বলেন, ২০১৮ সালের ১০ ও ১১ অক্টোবর আমাকে নিজের বাড়িতে ডেকে যৌন হেনস্থা করেন রঞ্জন গগৈ।

তিনি আরও বলেন, আমার কোমর জড়িয়ে ধরে সারা শরীর স্পর্শ করেন তিনি। আমি নিজেকে ছাড়ানোর চেষ্টা করি কিন্তু তিনি আমাকে জোর করে ধরে রাখেন।

দেশটির প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ সামনে আসার পর জরুরি ভিত্তিতে শুনানির ডাক দেন সুপ্রিম কোর্টের তিন সদস্যের বিশেষ বেঞ্চ।

এই বেঞ্চের প্রধান হিসেবে রঞ্জন গগৈ শুনানির সময় বলেন, এই অভিযোগ অবিশ্বাস্য। এই অভিযোগ অস্বীকার করতে গেলে যতটা নীচে নামতে হয়, তার জন্য আমি প্রস্তুত নই।

তিনি বলেন, অবশ্যই এই অভিযোগের পেছনে কোনও একটা শক্তি কাজ করছে, যারা প্রধান বিচারপতির অফিসকে নিষ্ক্রিয় করে দিতে চাচ্ছে।

ভারতের প্রধান বিচারপতি বলেন, আমার বিরুদ্ধে কোনও দুর্নীতির অভিযোগ নেই। তাই এই রাস্তা বেছে নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ২০ বছর ধরে চাকরি করার পর এখন আমার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে আছে ছয় লাখ ৮০ হাজার টাকা। আমার পিওনের কাছেও এর থেকে বেশি টাকা আছে।

তিনি অভিযোগকারী নারীর বিষয়ে বলেন, যিনি আমার বিরুদ্ধে এই মারাত্মক অভিযোগ করেছেন, তিনি অতীতে বিভিন্ন অপরাধের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

 

নাবা/ডেস্ক/হাফিজ