বাজেটে ১৫ ভাগ কৃষিতে বরাদ্দের প্রত্যাশা

স্বাধীতার ৪৮ বছরে কৃষকের শ্রমে ঘামে দেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। তাই সরকারের পরিকল্পনা, খোরপোষ কৃষিকে বাণিজ্যিক রূপ দেয়ার। অথচ এমন সময় ফসলের ন্যায্যমূল্য না পাওয়ার যন্ত্রণায় পুড়ছে কৃষকের মন।

এমতাবস্থায় অর্থনীতিবিদরা প্রত্যাশা করছেন আসছে বাজেটে কৃষিতে অন্তত ১৫ শতাংশ বরাদ্দ প্রয়োজন।

কৃষি সংশ্লিষ্টরা বলছেন, খোরাকী কৃষিকে বাণিজ্যিক করতে হলে বাজেটের ধরনে পরিবর্তন আনতে হবে।

বাজেট বরাদ্দ বাড়ানো ও ধরন পরিবর্তনের পাশাপাশি কৃষকদের নীতি সহায়তার পদক্ষেপও নিতে হবে সরকারকেই। অর্থনীতিবিদরা এমনটাই ধারনা করছেন।

ফি বছর বাজেটের আকার বাড়লেও ক্রমাগত বরাদ্দ কমছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উৎপাদন খাত কৃষিতে। কৃষি অর্থনীতিবিদরা বলছেন, কৃষকদের আকৃষ্ট করতে তাদের জন্য বরাদ্দ বাড়াতে হবে বাজেটে।

সাবেক এই কৃষি সচিব বলছেন, শুধু বরাদ্দ বাড়ালেই হবে না, বাণিজ্যিক কৃষির জন্য দরকার বাজটের ধরণে পরিবর্তন। এজন্য মনোযোগ দিতে হবে কৃষিপণ্যের প্রক্রিয়াজাত ও বাজার ব্যবস্থাপনায়। জলবায়ুর পরিবর্তনের বিষয়টি মাথায় রেখে গুরুত্ব দিয়ে ফসল গবেষণায়ও।

অর্থনীতিবিদ কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলছেন, কৃষিকে টেকসই করতে দরকার কৃষকবান্ধব নীতি। চলতি অর্থবছরে কৃষিতে বরাদ্দ ছিলো মোট বাজেটের মাত্র পাঁচ শতাংশ।
নাবা/সেন্ট্রাল ডেস্ক/কেএইচ/