বখাটের হামলায় মা ও মেয়ে গুরুতর আহত

চাঁদপুর: গালিগালাজের প্রতিবাদ করায় এক বখাটের অর্তকিত হামলায় মা সেলিনা বেগম (৪০) ও মেয়ে ফেরদৌসী আক্তারকে (২০) গুরুতর আহত করা হয়েছে।

গত বুধবার দুপুরে চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজার রিফিউজী কলোনীতে সন্ত্রাসী এ হামলার ঘটনাটি ঘটে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আহত মা ও মেয়ে চাঁদপুর আড়াইশ শয্যা সরকারি জেনারেল হাসপাতালের মহিলা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

আহত সেলিনা’র স্বামী ও ফেরদৌসীর বাবা ফরিদ সিকদার বাদী হয়ে হামলাকারী বখাটে শাওন (২২) ও তাঁর বাবা-মাকে অভিযুক্ত করে চাঁদপুর মডেল থানায় এজহার দায়ের করেন।

পুলিশের এসআই আওলাদ হোসেন ঘটনাস্থল পরির্দশন করে এলাকাবাসীকে জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার তদন্ত করে গেছেন। এখন পর্যন্ত সন্ত্রাসী শাওন আটক হয়নি।

আহত ফেরদৌসী আক্তার জানান, প্রতিবেশি ইয়াছিনের ছেলে শাওন প্রায় সময় তাকে দেখলে আজেবাজে কথা বলত এবং ইভটিজিং করত।ঘটনার দিন সে নিজেদের ঘরে কথা বলতেছিল। হঠাৎ শাওন উত্তেজিত হয়ে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ শুরু করে। গালাগালি করস কি জন্য বলতে শাওন দৌড়ে ধারালো দা ও কাঠের বেন্দা নিয়ে তার ওপর অর্তকিত আঘাত করে। তাঁর মা মেয়েকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাকেও বেন্দা দিয়ে মেরে আহত করা হয়। পরে স্থানিয়রা আশঙ্কাজনক অবস্থায় মা- মেয়েকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে আসে।

স্থানীয় বাসিন্দা ও জেলা তাঁতীলীগের সাধারন সম্পাদক নুর মোহাম্মদ পাটওয়ারি এবং সাংগঠনিক সম্পাদক মোকলেছ মল্লিক এ হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, একজন তরকারি বিক্রেতার ছেলে এভাবে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ করবে এবং মা-মেয়েকে কুপিয়ে এবং বেন্দা দিয়ে পিটিয়ে আহত করবে এলাকাবাসী কেউ মেনে নিতে পারছে না। মেয়েটির হাতে একাধিক সিলাই লেগেছে। তাঁর মাকেও শরীলের বিভিন্নস্থানে ফুলা জখম করা এবং মাথায়ও আঘাত করা হয়। আমরা হামলাকারীর দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি চাই।
এমএমএ/