প্রবাসী সেই মানুষটি প্রতারক সম্রাট

প্রাথমিক স্কুলের গন্ডি পাড় করতে পারেন নি। ১৮ বছর বয়সে পরিবার থেকে পাঠনো হয় সৌদি আরব। কিন্তু সেখানে সুদিনের দেখা মিলেনি। দুই বছর পর ফিরে আসেন দেশে। শূণ্য হাতে দেশে ফিরে বেছে নেন প্রতারণার পথ। আর তাতেই কোটিপতি বারেক সরকার।

রাজধানীর সবচেয়ে বড় প্রতারক চক্র (আরসিডি) রয়েল চিটার ডেভলপমেন্ট’র মূল হোতা বারেকসহ ৫ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব ৪।

আজ রোববার (২৬ মে) কারওয়ান বাজার র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‍্যাব-৪ এর অধিনায়ক চৌধুরী মঞ্জুরুল কবির।

তিনি জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানিয়েছে, প্রতারকচক্রটি ৪৩ বছর ধরে প্রায় ১০০ কোটি টাকার মত প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নিয়েছে।

এই প্রতারণা চক্রের মূল বারেক সরকার। তিনি গত ৪৩ বছর ধরে প্রতারণা করে আসছেন। প্রচারণার অংশ হিসেবে, তিনি একটি সংগঠন গড়ে তুলেছেন। নাম দিয়েছেন রয়েল চিটার ডেভলপমেন্ট(আরসিডি)।

সংগঠনটির রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় কর্পোরেট অফিস রয়েছে। সেখান থেকেই তারা প্রতারণা করে আসছে।

র‍্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, প্রতারণার কৌশল হিসেবে রাজধানীর ভিআইপি জায়গাগুলোতে তারা অফিস ভাড়া নেয়। সুসজ্জিত সে অফিসে অবসরপ্রাপ্ত বড় কর্মকর্তাদের আমন্ত্রণ জানায়। এভাবে প্রতারক সংগঠনটির সদস্যরা টার্গেট ব্যক্তিদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে তাদের ভুয়া বিভিন্ন কোম্পানির নামে শেয়ার হোল্ডার হতে আমন্ত্রণ জানায়।

সুসজ্জিত আর নামিদামী কর্পোরেট অফিস দেখে অবিশ্বাস করার কোন সুযোগ থাকেনা। ফলে টার্গেট ব্যক্তিরা কোম্পানির শেয়ারহোল্ডার হিসেবে বিনিয়োগ করেন। বিনিয়োগ হওয়ার পর ভুয়া চুক্তিপত্র তৈরি হয়। ২/১ দিন পরেই স্থান আর কোম্পানি দুইটিই পরিবর্তন করে আত্মগোপনে চলে যায় প্রতারক চক্রটি।

এছাড়াও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের আর্থিক স্বচ্ছল ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠানেও নানা কৌশলে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয় তারা। পাশাপাশি ইট, পাথর, রড, সিমেন্ট, গার্মেন্টস, চাল, সোলার প্যানেল ব্যবসায়ীদের সাথেও দক্ষতার সঙ্গে প্রতারণা করে আসছে তারা।
নাবা/সেন্ট্রাল ডেস্ক/কেএইচ/