পর্তুগালে কালরাতে নিহত শহীদদের স্বরণে মোমবাতি প্রজ্বলন

পর্তুগাল বাংলাদেশ দূতাবাসে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়েপালন করা হয়েছে ২৫ মার্চ কাল রাতে নিহতদের স্মরণ করে গণহত্যা দিবস।

সোমবার (২৫ মার্চ) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টায় দূতাবাস ভবনে গণহত্যায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে মোমবাতি প্রজ্বলন ও এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

পরে রাষ্ট্রদূত মো. রুহুল আলম সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে এবং দূতালয় প্রধান মো. হাসান আব্দুল্লাহ তৌহিদের সঞ্চালনায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় গণহত্যা দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শোনানো হয়। গণহত্যার ওপর নির্মিত ‘একাত্তরের গণহত্যা ও বধ্যভূমি’ শীর্ষক প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন হয় অনুষ্ঠানে। অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া রাজনৈতিক নেতারা পাকিস্তানি সেনাবাহিনী জঘন্যতম নৃশংসতা ও বর্বরতার প্রতি ঘৃণা প্রকাশ এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এর বিচার দাবি করেন।

রাষ্ট্রদূত মো. রুহুল আলম সিদ্দিকী বলেন, পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হত্যা, নিপীড়ন ও নির্যাতন বাংলাদেশিদের দাবিয়ে রাখতে পারেনি। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বীরত্বগাথা বর্তমানে বাংলাদেশকে সামনে এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখায়।

তিনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধে উদ্বুদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও চেতনাকে দৃঢ়ভাবে ধারণ করে অসম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার অভিযাত্রায় অংশ নিতে দল-মত নির্বিশেষে সকলের প্রতি আহ্বান জানান। আলোচনা শেষে ২৫ মার্চের কাল রাতে নিহত সকলের আত্মার মাগফেরাত করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

নাবা/ডেস্ক/হাফিজ