নেতিবাচক রাজনীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের আহবান : ওবামা

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যৌক্তিক বিতর্কের মধ্য দিয়ে নেতিবাচক রাজনীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য তরুণদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। জার্মানির বার্লিনে এক টাউন হল বৈঠকে তিনি এই আহ্বান জানান।

ইউরোপের তরুণ নেতাদের অনলাইনে রাজনীতির নেতিবাচক প্রবণতা দুর করে যৌক্তিক বিতর্কের আহবান জানান তিনি। একই সঙ্গে তিনি অ্যাক্টিভিস্টদের সতর্ক করে বলেছেন, সামাজিক মাধ্যম নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি এবং সেই সাথে ইন্টারনেটের  সঠিক ব্যাবহারের আহবান জানান ।

বারাক ওবামা বলেন, আমি মনে করি রাজনীতিকে নেতিবাচক প্রবণতার দিকে নিয়ে যাওয়ার জন্য সামাজিক মাধ্যমের মধ্য দিয়ে আসা তথ্যের অগাধ প্রবাহ কিছু মাত্রায় দায়ী। আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে ইন্টারনেট ও সামাজিক মাধ্যমে আলোচনা উন্নত করার উপায় খুঁজতে হবে।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরও যুক্ত করে বলেছেন, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যাপক বিস্তৃতির কারণে এই কাজ অনেক বেশি কঠিন হয়ে পড়বে। তিনি বলেন, আপনারা যদি মনে করেন ফেক নিউজ খারাপ, আপনারা মানুষের বক্তব্য সত্যের অনেক ভুলভাবে উপস্থাপিত হবে কী বলা হয়নি তা জানা আরও বেশি কঠিন হয়ে পড়বে।

তবে ওবামা সামাজিক মাধ্যমে সেন্সর আরোপের বিরাধিতা করেছেন চীন ও রাশিয়ার কথা তুলে ধরে। তার মতে, ইন্টারনেটে সেন্সরশিপের সম্ভাব্য অপব্যবহার করছে দেশ দুটো।

ভাষণে ওবামা তার উত্তরসূরী বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম উল্লেখ করেননি। তিনি তার বক্তব্যে ট্রাম্পের বিভিন্ন অবস্থানের বিরোধিতা উঠে এসেছে। অসমতা ও জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার পক্ষের কথা তিনি বলেছেন। এছাড়া তিনি, জাতীয়তাবাদ; বিশেষ করে উগ্র-জাতীয়তাবাদের পুনরুত্থান নিয়ে সতর্কতার কথাও বলেছেন।

ওবামা বলেছেন, ইউরোপের দীর্ঘ কয়েক দশকের শান্তির পক্ষে অর্জনের পরও আমরা জানি শক্তিশালী পক্ষগুলো এই প্রবণতাকে উল্টো দিকে নিয়ে যেতে কাজ করছে।

বার্লিনে টাউন হল বৈঠকটি আয়োজন করেছে ওবামা ফাউন্ডেশন। এই সংগঠনের পক্ষ থেকে রাজনীতিতে সবার অংশগ্রহণের জন্য উৎসাহিত করার কর্মসূচি পালন করা হয়। ভাষণে ওবামা তরুণদের রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান। একই সঙ্গে তিনি দেশ কোনদিকে যাচ্ছে তা নির্ধারণ করার জন্য পুরনো প্রজন্মকে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে না দেওয়ার জন্যও তরুণদের আহ্বান জানিয়েছেন।সুত্র:রয়টার্স।

নাব/ডেস্ক/তানিয়া রাত্রি