দেশজুড়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালন

বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার মধ্যে দিয়ে রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। এদিন জাতি শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় স্মরণ করে মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী বীর শহীদদের। জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন করেছে।

প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-
বরিশালে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত হচ্ছে। প্রত্যুষে বরিশাল পুলিশ লাইন্স মাঠে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের শুভ সূচনা করা হয়। দিবসের প্রথম প্রহরে (সকাল সাড়ে ৬টায়) বরিশাল নগরের জেলা প্রশাসক কার্যালয় সংলগ্ন শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি ফলকে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, বিভাগীয় কমিশনার, ডিআইজি, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ সরকারি বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তারা।

লক্ষ্মীপুর :

লক্ষ্মীপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে। ভোরে ৩১ বার তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে দিবসরটির সূচনা হয়। সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিফলকে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ কর হয়। একে একে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল, পুলিশ সুপার আ স ম মাহাতাব উদ্দিন, সিভিল সার্জন ডা. মোস্তফা খালেদ আহমদ, লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মাইন উদ্দিন পাঠান, জেলাআওয়ামীলীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন, লক্ষ্মীপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি মো. কামাল উদ্দিন হাওলাদার, সাধারণ সম্পাদক সাঈদুল ইসলাম পাবেল প্রমুখ।

চুয়াডাঙ্গা:

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরেও যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপিত হয়। সকালে জীবননগর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ছাত্রছাত্রীদের কুচকাওয়াজ এবং আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

গাজীপুর:

গাজীপুরে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত হয়েছে। সকল যুদ্ধাপরাধীর বিচার দ্রুত সম্পন্ন করার দাবির মধ্যে দিয়ে জামালপুরে পালিত হচ্ছে মহান স্বাধীনতা দিবস।

সূর্যোদয়ের সাথে সাথে মেহেরপুরের কলেজ মোড়ে অবস্থিত শহীদ স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধ্যা জানানো হয়।

যথাযথ মর্যাদায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া, টাঙ্গাইল ও মাগুরায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালন করা হচ্ছে।

দিনাজপুর :

দিনাজপুর জেলা প্রশাসন ভবন চত্বরে কেন্দ্রীয় স্মৃতিস্তম্ভে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে ৬টা ৩মিনিটে শহীদদের স্মরণে প্রথমেই শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি। এর পরপরই জেলা প্রশাসক ড. আবু নঈম মুহাম্মদ আবদুছ ছবুর ও পুলিশ সুপার হামিদুল আলমসহ বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, সংগঠন ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ: সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে তপোধ্বনির মধ্য দিয়ে দিবসটির সূচনা হয়। পরে জেলা কালেক্টরেট প্রাঙ্গণে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের নামফলক সম্বলিত স্মৃতিস্তম্ভে জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল হাসানসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ পুস্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতিস্তম্ভে বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ পুস্পস্তবক অর্পণ করেন।

দুপুরে সকল মসজিদে অনুষ্ঠিত হয় বিশেষ দোয়া ও মন্দির এবং গীর্জায় বিশেষ প্রার্থনা। এছাড়া দুপুরে হাসপাতাল, জেলখানা, শিশু পরিবার এতিম খানায় পরিবেশন করা হয় উন্নতমানের খাবার । বিকাল ৪টায় জেলা স্টেডিয়ামে সৌখিন ফুটবল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

ফরিদপুর: ফরিদপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা দিবস পালন করা হয়েছে। সকাল সাতটায় জেলা শহরের গোয়ালচামট এলাকায় স্বাধীনতা স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে বীর শহীদদের শ্রদ্ধা জানানো হয়।

প্রথমে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রীর পক্ষে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়। পরে জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, জেলা পরিশদ, জেলা আওয়ামী লীগ, ফরিদপুর প্রেসক্লাবসহ পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠনের পক্ষে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়।

মাধবপুর (হবিগঞ্জ): হবিগঞ্জে মাধবপুরে নানা আয়োজনে মহান স্বাধীনতা ও বিজয় দিবস পালন করা হয়েছে। সকালে উপজেলা প্রশানের উদ্যোগে র‌্যালি শেষে শহীদ বেদীতে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। পরে কুচকাওয়াজ শেষে বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থীদের শরীরচর্চা প্রদর্শনী হয়।

নন্দীগ্রাম (বগুড়া): বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বগুড়ার নন্দীগ্রামে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত হয়েছে। রবিবার সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে দিবসের শুরু হয়। এরপর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, নন্দীগ্রাম প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামজিক সংগঠন ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পুস্পার্ঘ্য অর্পণ করে।

রাজবাড়ী: রাজবাড়ীতে সরকারি ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দল এবং সামজিক সংস্থার নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত হয়। এ উপলক্ষে রাজবাড়ী শহীদ খুশী রেলওয়ে মাঠে স্কুল-কলেজের স্কাউট দল ও পুলিশ-আনছার বাহিনীর উদ্যোগে কুচকাওয়াজ ও শারীরিক কসরত প্রর্দশন করা হয়। এসময় রাজবাড়ী-১ আসনের এমপি কাজী কেরামত আলী, জেলা প্রশাসক জিনাত আরা ও পুলিশ সুপার সালমা বেগম পিপিএম উপস্থিত ছিলেন।

রাজশাহী: জাতির সূর্য সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য রবিবার ভোর থেকেই রাজশাহীর শহীদ মিনারগুলোতে নেমেছে মানুষের ঢল। সূর্যোদয়ের পর রাজশাহী পুলিশ লাইনে তোপধ্বনির মাধ্যমে স্বাধীনতা দিবসের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আয়োজন করা হয় ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা।

দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহীর সব সরকারি হাসপাতাল, শিশু সদন, এতিমখানা ও কারাগারে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়। এছাড়া আওয়ামী লীগের উদ্যোগে রাজশাহী নগরীর বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে মাইকে দেশ্বাত্ববোধক গান পরিবেশিত হয়।

রাজশাহী: জাতির সূর্য সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য রবিবার ভোর থেকেই রাজশাহীর শহীদ মিনারগুলোতে নেমেছে মানুষের ঢল। সূর্যোদয়ের পর রাজশাহী পুলিশ লাইনে তোপধ্বনির মাধ্যমে স্বাধীনতা দিবসের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আয়োজন করা হয় ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা।

দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহীর সব সরকারি হাসপাতাল, শিশু সদন, এতিমখানা ও কারাগারে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়। এছাড়া আওয়ামী লীগের উদ্যোগে রাজশাহী নগরীর বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে মাইকে দেশ্বাত্ববোধক গান পরিবেশিত হয়।

খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়: খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে প্রশাসনিক ভবন, ভাইস-চ্যান্সেলরের বাসভবন এবং আবাসিক হলগুলোতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল পৌনে ৯টায় ক্যাম্পাসস্থ মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্য ‘দুর্বার বাংলা’ এর পাদদেশে পরিবেশিত হয় গণসঙ্গীত।
রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়: মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে এম নূর-উন-নবীর নেতৃত্বে ক্যাম্পাসে শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে ক্যাম্পাসের স্বাধীনতা স্মারকের পাদদেশে এসে শেষ হয়।

নাবা/ডেস্ক/হাফিজ