ছাত্রলীগের হামলায় ডাকসু ভিপি নুর আহত

বগুড়ায়  ছাত্রলীগের হামলার শিকার হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর।

ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়ে তিনি ছাত্রলীগের হামলার শিকার হন। আহত নুরকে এম্বুলেন্সে করে ঢাকায় নিয়ে আসা হচ্ছে।

আজ রোববার শহরের সাতমাথা মোড়ের কাছে উডবার্ন সরকারি গ্রন্থাগার মিলনায়তনে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেছিল কোটা সংস্কার আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়া সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের বগুড়া জেলা শাখা।

সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির বেশ কয়েকজন নেতাসহ নুরু ইফতার মাহফিলে যোগ দিতে বিকেল পৌনে ৫টার দিকে অনুষ্ঠানস্থলে যাওয়ার পথে সাতমাথা মোড়ের কাছে সরকার দলীয় ছাত্র সংগঠনটির ২০-২৫ জন নেতাকর্মী তাদের ওপর হামলা চালায়।

ঘটনার ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বেশ কয়েকজন যুবক নুরকে ঘিরে ধরে কিল-ঘুষি মারছেন। হামলায় যমুনা টেলিভিশনের ক্যামেরা পারসন শাহনেওয়াজ শাওনও আহত হয়েছেন।

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন বলেন, নুর, ফারুক, রাসুল, আদিব আহত হয়েছেন।

এদের মধ্যে নুরের অবস্থা গুরুতর। তাকে ব্যাপক মারধর করা হয়েছে। চিকিৎসার জন্য নুরকে প্রথমে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, কিন্তু ফের হামলার শঙ্কায় এম্বুলেন্সে করে তাকে ঢাকায় আনা হচ্ছে।

হামলার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ছাত্রলীগের যখন ইচ্ছা হচ্ছে আমাদের ওপর হামলা চালাচ্ছে। এছাড়া সুনির্দিষ্ট আর তো কারণ দেখি না।

বগুড়া জেলা শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নাইমুর রাজ্জাক তিতাসের দাবি, নুরের ওপর তারা হামলা চালায়নি। তবে ধাক্কাধাক্কি হয়েছে।

এদিকে গতকালও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নুরুল হক নুরের ইফতার অনুষ্ঠান পণ্ড করার অভিযোগ উঠেছিল ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার উদ্যোগে শহরের মসজিদ সড়কের গ্র্যান্ড এ মালেক চায়নিজ রেস্টুরেন্টে আয়োজিত ইফতার অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন নুর।

পুলিশ পাহারায় ভিপি নুর ওই অনুষ্ঠানস্থলে প্রবেশ করতে গেলে স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা রেস্টুরেন্টে তালা লাগিয়ে দেয়।

এ ব্যাপারে ছাত্রলীগের জেলা সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেলের বক্তব্য ছিল, ছাত্রলীগ নয় বরং সাধারণ শিক্ষার্থীরাই রেস্টুরেন্টটিতে তালা দিয়েছিল।

 

নাবা/ডেস্ক/হাফিজ