ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদের কমিটি সোমবার (১৩ মে) ঘোষণার পর থেকে পদপ্রাপ্ত নিয়ে বেড়িয়ে আসছে নানা অজানা তথ্য। সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানীসহ অন্যান্য নেতা-নেত্রীদের বিয়েসহ বিভিন্ন গোপন তথ্য প্রকাশ পাচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে। পদবঞ্চিতরা একের পর এক বোমা ফাটাচ্ছেন তাদের নিয়ে।

পদ বঞ্চিতদের দাবি, বিবাহিত হয়েও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে স্থান পেয়েছে অনেকে। নিজেদের ‘অন্যরকম’ সুবিধা মেটাতে বিবাহিত আর নব্যদের সুযোগ দিয়েছে শোভন-রব্বানী। পদ পেয়েছে ঘোর বিএনপি পরিবারের ছেলে-মেয়েরাও। এছাড়া সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের বিকৃত রূচি নিয়ে সমালোচনা করেছেন কেউ কেউ।

 

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় কমিটিতে সহ-সভাপতি পদ পাওয়া সোহানী তিথি, সাংস্কৃতিক বিষয়ক উপ-সম্পাদক পদ পাওয়া আফরিন সুলতানা লাবণী, উপ পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক রুশি চৌধুরী, সহ-সম্পাদক পদ পাওয়া আনজুমান আরা আনু ও সামিহা সরকার সুইটি বিবাহিত। সামিহা সরকারের বাবা আবদুর সবুর কালিয়াকৈর বিএনপির সভাপতি। এছাড়াও সহ-সভাপতি ইশাত কাসফিয়া ইরাও বিবাহিত বলে অভিযোগ অনেকের। কমিটিতে রয়েছে রাজাকারপুত্রের নামও।

সংগঠনের গঠনতন্ত্রের ৫-এর গ ধারা অনুযায়ী বিবাহিত ব্যক্তি ছাত্রলীগের কমিটিতে স্থান পাবেন না।

 

 

শামসুন্নাহার হলের সাধারণ সম্পাদক জিয়াসমিন শান্তা তার ফেসবুক ওয়ালে লিখেন,

‘নারীদের বিবাহিত হওয়া ও আন্ডারগ্রাউন্ড প্রটোকল দেয়া বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটিতে বড় পোস্ট পাওয়ার মূলমন্ত্র।
অভিনন্দন গোলাম রাব্বানী ভাই ও শোভন ভাই, হিসাব আছে, অনেক হিসাব, চলেন মিলাই।’

 

 

 

সোমবার কমিটি ঘোষণার কিছুক্ষণ পর সাবেক কেন্দ্রীয় নেত্রী জেরিন দিয়া তার ফেসবুক ওয়ালে লিখেন,

‘রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং গোলাম রাব্বানী ভাই আপনাদের মধুভর্তি মেয়ে লাগে। বড় বড় প্রোগ্রামে মেয়েদের মুখ না দেখলে তো আপনাদের মন ভরতো না। শোভন ভাই আপনি একদিন আমাকে সবার সামনে বলছিলেন কী রে চেহারা সুন্দর আছে; তো সেজেগুজে আসতে পারো না!
আমি সেজেগুজে আসতে পারি নাই দেখে আমাকে কমিটিতে রাখলেন না??
আপনারা যেসব মেয়েকে কমিটিতে রেখেছেন তারা কয়দিন থেকে রাজনীতি করে! আপা কি জানেন?? আর নিজে বিবাহিত বলে কমিটিতে দুনিয়ার বিবাহিত মেয়েদের রেখেছেন!!!
আর গোলাম রাব্বানী ভাই আমাকে সবার সামনে বলছিলেন দুইদিনের মেয়ে কেমনে পোস্ট পাইছো বুঝি নাই! কয়জনের বেডে গেছো এনএসআই রিপোর্ট করলেই জানা যাবে। মনে আছে গোলাম রাব্বানী ভাই?????? আমি তখন আপনার যোগ্য কথার জবাব দিয়েছিলাম। আজ তার শোধ নিলেন?????
অনেক তথ্য অপেক্ষা করছে আপনাদের জন্য।
এই বিবাহিত বিতর্কিত কমিটি মানি না; মানবো না…
আমার শ্রমের মূল্য দিতে হবে আপনাদের।’

নাবা/১৪মে/তারেক