চাঁদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় মামা-ভাগ্নের মৃত্যু

চাঁদপুর সদর উপজেলার আশকাটি ইউনিয়নের গাবতলী এলাকায় বাস-সিএনাজি চালিত অটোরিকশা মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে এমরান হোসেন (৩৪) নামে ব্যাংক কর্মকর্তা ও ভাগ্নে ফাতেমা আক্তার (১০) নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অটোরিকশার আরো দুই যাত্রী।

আজ মঙ্গলবার (১১ জুন) সকালে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের গাবতলীতে এই দুর্ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরপরই বাসটি দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে এবং অটোরিকশা চালক পালিয়ে যায়।

নিহত এমরান হোসেন হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার বলাখাল গ্রামের সর্দার বাড়ীর মোঃ তাজুল ইসলামের ছেলে। তিনি সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের গাজীপুর শাখার কর্মকর্তা ছিলেন। ভাগ্নি ফাতেমা আক্তার মোঃ আলমগীর হোসেনের মেয়ে।

আহতরা হলেন-ফরিদগঞ্জ উপজেলার সুবিদপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর গ্রামের ডাঃ ভাষান চন্দ্র শীলের ছেলে রতন চন্দ্র শীল (৩০) ও মোঃ জুয়েল হোসেন (৩৫)।

আহতদের মধ্যে রতনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, সিএনজি চালিত অটোরিকশাটি হাজীগঞ্জ থেকে চাঁদপুরের দিকে আসছিলো এবং পদ্মা পরিবহনের বাসটি চাঁদপুর থেকে আসার সময় মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই অটোরিকশার যাত্রী এমরান নিহত হন। আর ভাগ্নী ফাতেমাকে ঢাকায় নেয়ার সময় চাঁদপুরে মারা যায়।

চাঁদপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রেজাউল করিম জানান, ব্যাংক কর্মকর্তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তার পিতা তাজুল ইসলাম থানায় এসে আবেদন করার পর মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

নাবা/ডেস্ক/রাজু/কেএইচ/