চাঁদপুরে গৃহবধুর লাশ উদ্ধার, শ্বাশুরি আটক

চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জে গৃহবধূকে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ফরিদগঞ্জ থানায় ২ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন নিহতের বাবা।

পুলিশ নিহতের শ্বাশুরিকে আটক করেছে। অপর আসামি নিহতের স্বামী মাহফুজুর রহমান সৌদি প্রবাসী।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ঘনিয়া গ্রামের সৌদি প্রবাসীর মাহফুজুর রহমানের সঙ্গে পাশ্ববর্তী হুগলি গ্রামের মহসিন মিয়ার মেয়ে সালমা বেগমের (২৪) কয়েক বছর পূর্বে বিয়ে হয়। তাদের মাহমুদ নামে দুই বছরের একটি সন্তান রয়েছে। রোববার দুপুরে শ্বশুর বাড়ি ঘনিয়া গ্রামের পতিশ বাড়ির ঘরের আড়ার সাথে সালমার ওড়না দিয়ে ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায় লোকজন। এ সময় তার হাতের রগ কাটা ছিল। ঘরের মেঝেতে রক্তের ছাপ দেখা যায়। পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

সালমার বাবা মহসিন অভিযোগ করেন, তার মেয়েকে হাতের রগ কেটে হত্যা করে ঘরের আড়ার সাথে লাশ ঝুলিয়ে আত্মহত্যা করেছে প্রচারণা চালাচ্ছে তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

ফরিদগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) অহিদুল ইসলাম জানান, সালমা বেগমের লাশ ময়না তদন্তের জন্য চাঁদপুর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। তার শ্বাশুরি আলিমুননেছাকে কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন করতে তার রিমান্ড চাওয়া হবে।

নাবা/২০মে/তারেক