ঘুমন্ত শ্রমিকের মাথা কেটে থানায় হাজির!

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে মন্দিরে ঘুমন্ত অবস্থায় লিটন ঘোষ নামের এক ব্যক্তির শরীর থেকে মাথা কেটে থানায় গিয়ে হাজির হয়েছেন লঘু দাস (৫০) নামে এক ব্যক্তি।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে নাসিরনগর উপজেলা সদরের গৌর মন্দিরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত লিটন ঘোষ কুলিয়ারচরের মতিলাল ঘোষের ছেলে। খুনী লঘু দাস উপজেলা সদরের পশ্চিম পাড়ার মৃত পরমানন্দ দাসের ছেলে।

নাসিরনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) কবির হোসেন জানান, লিটন দাস বোনের বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন। দুপুরের খাবার খেয়ে তিনি পার্শ্ববর্তী গৌরমন্দিরের নাট মন্দিরে ঘুমচ্ছিলেন।

এ সময় মানসিক প্রতিবন্ধী লঘু দাস একটি ধারালো দা দিয়ে লিটন ঘোষের মাথা শরীর থেকে আলাদা করে ফেলে। পরে সেই মাথা ব্যাগে ভরে নাসিরনগর থানায় হাজির হয়। এ সময় মাথাসহ তাকে আটক করা হয়। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১৫ জানুয়ারি এই লঘু দাসের হাতে খুন হন নাসিরনগর উপজেলা সদরের সাবেক ইউপি সদস্য ও স্থানীয় লোকনাথ মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক মতিলাল দাস।

নাবা/ডেস্ক/রাজু