খালেদার রিট : আদালত পরিবর্তনের সিদ্ধান্তে চ্যালেঞ্জ

খালেদা জিয়ার বিচারে কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারের ভেতর আদালত স্থানান্তর করার বিষয়ে গত ১২ মে জারি করা প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার চেয়ে রিট করেছেন তার আইনজীবী।

রোববার বিচারপতি ফারাহ মাহবুবেরর নেতৃত্বাধীন অবকাশকালীন বেঞ্চে এ রিট আবেদন দাখিল করা হয়। আদালত আগামীকাল (সোমবার) এ বিষয়ে শুনানির দিন ধার্য করেছেন।

এর আগে গত সপ্তাহে রেজিস্ট্রি ডাকযোগে খালেদা জিয়ার অন্যতম আইনজীবী কায়সার কামাল আইন সচিবকে লিগ্যাল নোটিশ প্রেরণ করেন। কিন্তু তার জবাব না পাওয়ায় এ রিটটি দায়ের করা হয়েছে।

কায়সার কামাল বলেন, গত ১২ মে আইন মন্ত্রণালয় থেকে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে। ওই প্রজ্ঞাপন অনুসারে খালেদা জিয়ার মামলা শুনানির জন্য পুরাতন ঢাকার সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে আদালত (বিশেষ জজ আদালত-৯) স্থানান্তর করে কেরানীগঞ্জে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ওই প্রজ্ঞাপনকে খালেদা জিয়া ও আমরা বেআইনী বলে মনে করি। কারণ, সংবিধানের ৩৫ অনুচ্ছেদের স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে, যে কোন বিচার হতে হবে উন্মুক্তভাবে।

কারাগারের একটি কক্ষে উন্মুক্তভাবে বিচার হতে পারেনা উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই প্রজ্ঞাপন সংবিধানবিরোধী।

এই আইনজীবী আরো বলেন, কোথায় কোথায় কারাগার স্থানান্তরিত হতে পারে তা ফৌজদারী কার্যবিধি আইনে দেয়া আছে। ফৌজদারী কার্যবিধি আইনে কোথাও উল্লেখ নেই যে, কারাগারের মধ্যে আদালত স্থাপন হতে পারে। সুতরাং সংবিধান ও ফৌজদারী আইনের বিরুদ্ধে সরকার অবস্থান নিয়েছে।
নাবা/সেন্ট্রাল ডেস্ক/কেএইচ/