এবার নিজেই আত্নহত্যা করলেন সেই বাবা

বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলায় সৎ মেয়ে ও স্ত্রীর ঘুমের ঘরে পেট্টল দিয়ে আগুন ধরিয়ে মেয়েকে পুড়িয়ে হত্যার কয়েক ঘন্টা পর বাবা বেল্লাল হোসেন (৩৫) গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) পাথরঘাটা উপজেলার সদর পাথরঘাটা ইউনিয়নের পুর্ব হাতেমপুর গ্রামের খালের পাশ থেকে আম গাছে ঝূলন্ত অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এর আগে বুধবার (১২জুন) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার সদর পাথরঘাটা ইউনিয়নের রুহিতা গ্রামে বসত ঘরে ঘাতক সৎ পিতা মো. বেল্লাল হোসেন (৩৫) আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মেয়ে কারিমা আক্তারের (১০) মৃত্যূ হয়। মৃত্যূর কয়েক ঘন্টা পর দগ্ধ ঘাতক বাবা প্রায় ৪ কিলোমিটার দুরে এসে গলায় রশিদ দিয়ে আত্মহত্যা করে। বেল্লালের শরীরেরও একাধিক জায়গায় পুড়ে যাওয়ার ক্ষতো রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, মরদেহটি আগুনে দগ্ধ ঘাতক বেল্লাল হোসেনের। পাথরঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হানিফ শিকদার নিশ্চিত করে বলেন, পাথরঘাটা উপজেলার সদর পাথরঘাটা ইউনিয়নের পুর্ব হাতেমপুর গ্রামের খালের পাড়ে একটি আম গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় একটি মরদেহ পাওয়ার খবর স্থানীয়রা থানায় জানালে ঘটনাস্থলে গিয়ে আম গাছের সাথে গলায় রশি দেওয়া মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এদিকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল ও হাসপাতালে পাঠানো আহত সাজেনুর বেগমের অবস্থাও সংকটাপন্ন। সাজেনুরের সঙ্গে থাকা স্বজনরা জানান, এখন পর্যন্ত কিছুই বলা যাচ্ছে না। সাজেনুরের অবস্থা খুবই খারাপ।

নাবা/ডেস্ক/রাজু