এক বনসাই গাছের দাম ৫ লাখ (ভিডিও)

একটি বনসাই গাছের দাম ৫ লাখ টাকা, নিজ চোখে না দেখলে তা বিশ্বাস করাটাই দুষ্কর। অনেকে হয়তো আবার একটু বাড়াবাড়ির কথা বলে ফেলবেন। কিন্তু না, বাস্তবে একটি বনসাই গাছের দাম ৫ লাখ টাকা চাওয়া হয়েছে। রাজধানীর আগারগাঁও এলাকার বাণিজ্য মেলার মাঠে চলমান জাতীয় বৃক্ষ মেলায় জিংসিং নামের এমন একটি বনসাই গাছ এনেছে কৃষিবিদ উপকরণ নার্সারি নামের একটি প্রতিষ্ঠান। এরই মধ্যে গাছটির দাম উঠেছে সাড়ে তিন লাখ টাকা পর্যন্ত। তবে বিক্রেতারা আরও দাম আশা করছেন।

বনসাই গাছ এবং মেলা নিয়ে নাগরিক বার্তার সঙ্গে কথা বলেছেন প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজার খন্দকার শরিফুল আলম রানা। তিনি বলেন, এই গাছটির নাম হচ্ছে জিংসাং। গাছটি মূলত শোভা বর্ধণকারী গাছ হিসেবে অনেকেই বাড়ির সামনে, অফিসের সামনে রোপন করে থাকে। অনেক সময় এগুলো সড়কের পাশেও রোপন করা হয়। বনসাই হওয়ার কারণে এই গাছটিকে আলাদাভাবে যত্ন করতে হয়। গাছের ডালপালা বড় হয়ে গেলে কেটে দিতে হয়। নিয়ম মেনে মাটি শুকিয়ে গেলে পানি এবং ৬ মাস পর পর জৈব সার দিতে হয়। এটি থাইল্যান্ড থেকে আমদানি করা। এ বনসাই গাছটির বয়স প্রায় ৩৫ বছর। মেলা শুরুর পর এই গাছটির দাম চাওয়া হয়েছে ৫ লাখ টাকা। সর্বোচ্চ সাড়ে ৩ লাখ টাকা পর্যন্ত দাম উঠেছে। তবে আশা করছি আর একটু দাম পেলেই বিক্রি করে দেবো।

তিনি আরও বলেন, এবার মেলায় ক্রেতা অনেক বেশি, বিক্রিও ভালো। আমাদের কাছে ফুল, ফল, শোভা বর্ধণকারী, ঔষধি, ইনডোর, আউট ডোরসহ প্রায় ১ হাজার প্রজাতির গাছের বিশাল সংগ্রহ রয়েছে। ১০ টাকা থেকে শুরু করে ৫ লাখ টাকা দামের গাছ আছে। আসলে দিনদিন ঢাকায় বৃক্ষপেমির সংখ্যা বাড়ছে। সরকারের বিভিন্ন পলিসির কারণে মানুষ গাছ কিনছে।

যেমন বাসা-বাড়ির ছাদে যদি বাগান থাকে তাহলে ট্যাক্স কমানো হয়। সরকারের এমন সুযোগ সুবিধার জন্য বৃক্ষ প্রেমিক বাড়ছে। আমরা মনে করি বৃক্ষমেলা একবার না করে বছরে কয়েকবার করা যেতে পারে। এ ছাড়া সবজি মেলা করতে পারলে ক্রেতাদের আগ্রহ বাড়বে।

ঢাকায় সবজি মেলা হয় মাত্র ৩ দিনের। এটাকে যদি ১৫ দিন করা যায়। পাশাপাশি একবার বৃক্ষমেলা, সবজি মেলা, পুষ্প মেলার আয়োজন করা যেতে পারে। এর ফলে মানুষ উপকৃত হবে। বর্তমানে ফল, ফুল, ভেষয গাছের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। এ ছাড়াও অনেকে বনজ গাছের সংগ্রহের জন্য আমাদের কাছে আসেন। আমাদের কাছে বিরল প্রজাতির কিছু গাছ রয়েছে। যেমন সুন্দরবনের বাউবাউ, গদিলা, সোনা গাছ, গোল পাতা, তমাল, হিজল। এই গাছগুলো সংগ্রহ করেন শৌখিন গাছ সংগ্রাহকরা। যারা বিরল এবং মূল্যবান গাছ সংগ্রহ করতে ভালোবাসেন তারাই মূলত এ ধরনের গাছগুলো কিনে থাকেন।

নাবা/ডেস্ক/রাজু/তারেক