একুশের প্রাণের গ্রন্থ মেলা

ঢাকা: অমর একুশে গ্রন্থ মেলা এখন রাজধানীসহ সারাদেশের মানুষের প্রাণের মেলা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সকাল থেকে শুরু করে সন্ধ্যা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বই প্রেমি মানুষগুলোর ভীড় দেখা মিলে বই মেলাতে। মেলাতে আসা মানুষগুলো যেন প্রাণ ফিরে পায় দেখতে এসে। তথ্য প্রযুক্তির বিপ্লবের কারণে বই মেলায় অনেক আধুনিকতার ছোঁয়া লেগেছে। শিশু থেকে শুরু করে সব বয়সী মানুষ যে যার মত ঘুরছে, ছবি তুলছে, সেলফি তুলছে, বই পড়ছে, অনেকে প্রিয়জনকে তার পছন্দের বই কিনে দিচ্ছে।
বুধবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বই মেলা ঘুরে দেখাগেছে পহেলা ফাল্গুন হওয়ার কারণে মেলায় আসা তরুন তরুণীদের ভীড়। বই মেলায় প্রবেশের অনেক দুর থেকেই সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ। এ কারণে খুব স্বাভাবিকভাবে লোকজন পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মেলায় প্রবেশ করতে পারছেন। অনেকেই হাটছে আর বলছে সড়কে যানবাহন বন্ধ করায় খুব ভাল হয়েছে। পুরো মেলাজুড়ে রয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর নিরাপত্তা।

বই মেলায় আসা ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের জন্য রয়েছে অনেক সুযোগ সুবিধা। প্রবেশের সড়কে দেখাগেলো সুইস বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন ও বাংলা একাডেমীর আয়োজনে রয়েছে মেলা আশা হেঁটে চলাফেরা করতে অক্ষম তাদের জন্য রয়েছে বিশেষ হুইল চেয়ার। বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা করেছে ঢাকা মেট্টোপলিটন পুলিশ। বিকাশ আয়োজন করেছে ফ্রিতে একাউন্ট ওপেন করা। নিরাপদ সড়ক চাই সংগঠন তাদের স্টলে মানুষক সচেতন করার জন্য প্রচারণা করছে বিভিন্ন ভাবে। শিশুদের জন্য রয়েছে আলাদা এরিয়া। সব মিলিয়ে একটি জমজমাট অবস্থা দেখাগেলো গ্রন্থমেলায়।

১৯৫২, ১৯৭১, ২০১৯ সাল দিয়ে সাঁজানো হয়েছে বই মেলার শ্লোগান। বাংলাভাষার অর্জন, আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ ও ২০১৯ সালে এসে আমাদের আজকের উন্নত দেশের দিকে ছুটে চলা এই শ্লোগনের ভাবার্থ ধারণ করছে বই মেলা। বই মেলার অনন্য আয়োজন দেখার জন্য ঘুরে আসতে পারেন বইপ্রেমিরা।
নাবা/এমএমএ/