উদ্ধার হওয়া সৌদি নাগরিকের মরদেহ হস্তান্তর

নাগরিক বার্তা ডেস্ক:  ময়মনসিংহের গৌরীপুরের ডৌহাখলা থেকে উদ্ধারকৃত সৌদি নাগরিক আলদুসারী নাচ্ছের ফালেহ জির (আবু নাছের আল দুসারী) লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমঘর থেকে এ লাশ গ্রহণ করেন ঢাকাস্থ সৌদি দূতাবাসের সেক্রেটারি টু চার্জ দ্য এফেয়ার্স ইয়াসিন মো. আব্দুস শহীদ চৌধুরী। লাশ হস্তান্তর করেন গৌরীপুর থানার ওসি মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন। পুলিশ সূত্র জানায়, সৌদি দূতাবাসের চার্জ দ্য এফেয়ার্স আমের ওমর সালেম ওমরের পত্রাদেশে ও ময়মনসিংহের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ডক্টর সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাসের অনুমতিক্রমে এ লাশ হস্তান্তর অনুষ্ঠিত হয়।

গৌরীপুর থানার এসআই বিপ্লব মহন্তের নেতৃত্বে পুলিশ প্রহরায় লাশ নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমঘরে। রোববার রাত ৮টায় লাশ ঢামেক হিমঘরে রয়েছে বলে নিশ্চিত করেন বিপ্লব মহন্ত।

অপরদিকে শনিবার রাতে সৌদি নাগরিকের অপমৃত্যু সংক্রান্ত ঘটনার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে ময়মনসিংহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এডমিন) হুমায়ুন কবীর, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) এসএ নেওয়াজী, গৌরীপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাখের হোসেন সিদ্দিকী ও গৌরীপুর থানার ওসি মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন ও ঊধ্বর্তন কর্তৃপক্ষ বৈঠক করেন।

এদিকে রোববারও সৌদি নাগরিকের মৃত্যুর সংবাদে সানীর বাড়িকে ঘিরে ছিল উৎসুক জনতার ভিড়। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি, ময়মনসিংহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসএ নেওয়াজী ও বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তাগন।

আরো পড়ুন>> মদ্যপানে সৌদি নাগরিকের মৃত্যু, দুই মামলা

আরো পড়ুন>> অতিরিক্ত মদ্যপানে সৌদি নাগরিকের মৃত্যু, মরদেহ উদ্ধার

এদিকে আবু নাছের আল দুসারী মৃত্যুর ঘটনায় গৌরীপুর থানার এসআই বিপ্লব মহন্ত বাদী হয়ে গৌরীপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেন।

লাইসেন্সবিহীনভাবে চোলাই মদ সেবন করার অপরাধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে আবু সাইদ সানীর বিরুদ্ধে আরও একটি মামলা হয়েছে। এ মামলা দায়ের করেন গৌরীপুর থানার এসআই মো. শরীফ উদ্দীন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ডৌহাখলা গ্রামের করম আলীর পুত্র আবু সাঈদ সানীর সঙ্গে প্রায় ২০বছর পূর্বে ঢাকায় পরিচয় ঘটে আবু নাছের আল দুসারীর (৪৮)। এ পরিচয়ের সূত্র ধরেই অবকাশ যাপনের জন্য প্রায়শ: তিনি গৌরীপুরে আসতেন। সানির লালন আখড়ার নামে চলতো মদ, গাঁজার সঙ্গে গান-বাজনাও।

সৌদি নাগরিক সর্বশেষ এদেশে আসেন ২০১৮ সালের ৯ ডিসেম্বর। সেদিন থেকেই সানীর বাড়িতে তিনি থাকতেন। বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় সানীর বাড়িতে আবু নাছেরর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে গৌরীপুর থানার ওসি আবদুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেন।

জানা গেছে, আবু নাছের একজন ভিসা ব্যবসায়ী।

এমএমএ/