অন্ত:সত্ত্বাকে গাছে বেঁধে নির্যাতন : দায়িত্বে অবহেলায় এসআই ক্লোজড

শেরপুরের নকলা থানা এলাকায় অন্তঃসত্ত্বা নারীকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় কর্তব্যে অবহেলার অভিযোগে উপ-পরিদর্শক (এসআই) ওমর ফারুককে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করার খবর পাওয়া গেছে। জেলা পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম এসআই ফারুককে ক্লোজ করার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। ওই ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আমিনুল ইসলামকে প্রধান করে জেলা পুলিশের তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি শুক্রবার (১৪ জুন) দুপুরে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে বলে জানান পুলিশ সুপার।

এদিকে নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাহনেওয়াজকে ক্লোজ করার গুঞ্জন শোনা গেলে পুলিশ সুপার এ বিষয়টি নিশ্চিত করেননি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ মে নকলা উপজেলার কায়দা গ্রামে জমি নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে ডলি খানম নামে এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্মম নির্যাতন চালায় প্রতিপক্ষরা। মারধরে ওই গৃহবধূর গর্ভের সন্তান নষ্ট হয়ে যায়। নকলা থানা থেকে এসআই ফারুক ঘটনাস্থল থেকে ওই নারীকে উদ্ধার করলেও অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কার্যকরী কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। ঘটনার এক মাস পর ১১ জুন ওই নির্যাতনের ভিডিও রেডর্ক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়।

বিষয়টি আমলে নিয়ে পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম নির্দেশ দিলে নকলা থানা পুলিশ ওই গৃহবধূকে বাদী করে ৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ৩/৪ জনকে আসামি করে মামলা নেয়। ওই মামলায় নাসিমা আক্তার (৪০) নামে এক নারীকে গ্রেফতার করে বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) আদালতে সোপর্দ করলে বিচারক তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। অন্য আসামিরা পলাতক রয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে পুলিশ হেডকোয়ার্টারের নির্দেশে ময়মনসিংহ রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি ড. আক্কাছ উদ্দিন ভূঁইয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং ভুক্তভোগীর পরিবারের সঙ্গে কথা বলে বিস্তারিত শোনেন।

নাবা/১৪জুন/তারেক