বরগুনা ডৌয়াতলা ইনিয়ন ভূমি অফিসে ঘুষ বানিজ্য

বরগুনা ডৌয়াতলা ইনিয়ন ভূমি অফিসে ঘুষ বানিজ্যবরগুনা বামনা উপজেলার ৪নং ডৌয়াতলা ইউনিয়ন ভূমি অফিস
দীর্ঘ দিন ধরে অবাধে ঘুষ বাণিজ্য চললেও রহস্যজনক কারণে কর্তৃপক্ষের কোনো ভূমিকা নেই। প্রমান পেলেও দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাও নিচ্ছেন না জেলা প্রশাসন।

এ ইউনিয়ন ভূমি অফিসে দাখিলা, দাগ-খতিয়ান ও মিউটেশনের তথ্য সরবরাহে ঘুষ না দিলে ঘুরতে হয় দিনের পর দিন। অবশেষে ধার্যকৃত টাকা দিয়ে কাজ সম্পন্ন করতে হয়।

গত রোববার (৮ সেপ্টেম্বর ) সকালে ভূমি অফিসে গিয়ে দেখা যায়, ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ রশিদে তাজেম আলী নামে দাখিলায় ১৯২ টাকা লেখা। কিন্তু রাখা হয়েছে ৩০০ টাকা।

অভিযোগ রয়োছে, বর্তমান ইউনিয়ন ভূমি সহকারী তহশিলদার মো. রিয়াজুল ইসলাম যোগদানের পর ঘুষ বাণিজ্য প্রবল বেড়েছে। এখানে একই পদে থাকা প্রভাষ চন্দ্রকে ঘুষ নেয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগে অন্যত্র বদলী করা হয়েছে।

দাখিলা কাটতে আসা উত্তর কাকচিড়া গ্রামের বাসিন্দা রশিদ মিয়া জানান, অনেক আগে থেকেই এখানে ঘুষ বানিজ্য চলমান। আমরা যদি প্রতিবাদ করি তাহলে কোনো কাজ সহজে হবে না। তাই ঘুষ দিয়েই কাজ করি।

অভিযুক্ত তহশিলদার মো.রিয়াজুল ইসলাম তার ঘুষ বানিজ্য চাঁপা দিতে সংবাদকর্মীদের ম্যানেজ করতে গিয়ে ব্যর্থ হয়েছেন।

বামনা সহকারী কমিশনার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শিউলি হরি জানান, বামনা কোনো ভূমি অফিসে অতিরিক্ত টাকা আদায় করা হয়না। যদি প্রমান পাওয়া যায় তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নাবা/ডেস্ক/কেএইচ/

রিলেটেড নিউজঃ

    মতামত দিন