কাশ্মীর ইস্যু: পাকিস্তানকে ভারতের কড়া জবাব

কাশ্মীর ইস্যু: পাকিস্তানকে ভারতের কড়া জবাবসংগৃহীত
জম্মু-কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের বক্তব্যকে আপত্তিকর বলে উল্লেখ করেছেন বিজয় ঠাকুর সিংহ। সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের বৈঠকে ভারতের পক্ষে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, পাকিস্তানের আনা অভিযোগ মিথ্যে। পাশাপাশি তিনি জানিয়ে দেন, জম্মু ও কাশ্মীর ইস্যু একান্তই ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। 

ভারত বরাবরই বলে আসছে, এটি একান্তই অভ্যন্তরীণ বিষয়। আন্তর্জাতিক মহলে জানিয়ে এসেছে জম্মু ও কাশ্মীরের ‘স্পেশাল স্ট্যাটাস’ তুলে নেওয়াটা একান্তই এদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়। অধিকাংশ দেশই ভারতের দাবি মেনে নিয়েছে।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়, বৈঠকে ভারতীয় প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন অজয় বিসারিয়া ও বিজয় ঠাকুর সিংহ। অজয় বিসারিয়া পাকিস্তানে নিযুক্ত হাই কমিশনার হিসেবে ছিলেন। ভারতের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ছিন্ন করার ব্যাপারে পাঁচটি পদক্ষেপ গ্রহণ করে পাকিস্তান। তার মধ্যে একটি ছিল অজয়কে দেশে ফেরত পাঠানো।
 
বিজয় ঠাকুর সিংহ বলেন, বৈষম্য ঘোচাতে জম্মু ও কাশ্মীরে এটি একটি সংসদীয় সিদ্ধান্ত। পাকিস্তানের নাম উল্লেখ না করেই তিনি বলেন, বিশ্ব জানে এই মনগড়া আখ্যান তৈরি করছে বিশ্ব সন্ত্রাসবাদের কেন্দ্রস্থল, যেখানে জঙ্গি নেতারা বছরের পর বছর ধরে আশ্রয় পাচ্ছে। এমন এক দেশ যারা আন্তঃসীমান্ত সন্ত্রাসবাদ পরিচালনা করে কূটনীতির অংশ হিসেবে।

এর আগে জম্মু ও কাশ্মীরের ‘স্পেশাল স্ট্যাটাস’ তুলে নিয়ে রাজ্যকে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত করার ভারতের পদক্ষেপের বিরোধিতা করে পাকিস্তান।  জানিয়ে দেয়, কাশ্মীরে রাজনৈতিক নেতাদের বন্দি করা ও রাজ্য জুড়ে নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে সমগ্র দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া।

প্রথম থেকেই এই পদক্ষেপের বিরোধিতা করেছে পাকিস্তান। এর আগে জাতিসংঘে তারা এ ব্যাপারে আর্জি জানানোর পর এই নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক হয়। কিন্তু চিন ছাড়া বাকি সব দেশই একমত হয় যে, জম্মু ও কাশ্মীরে ভারত যে পদক্ষেপ করেছে তা একান্তই তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়।

নাবা/ডেস্ক/কেএইচ/

রিলেটেড নিউজঃ

    মতামত দিন