বাগেরহাটে দেড়শো বছরের পুরাতন লাইব্রেরীর নব রূপায়ন

  • প্রকাশিতঃ 2019-07-27 20:04:59
বাগেরহাটে দেড়শো বছরের পুরাতন লাইব্রেরীর নব রূপায়ন

বাগেরহাট সদর উপজেলার কাড়াপাড়ায় ১৮৮৮ খ্রিস্টাব্দে নির্মিত কুমুদ বাসিনী পাবলিক লাইব্রেরীর নব রূপায়ন পরবর্তী উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ শনিবার বিকেলে কাড়াপাড়া বাজার প্রাঙ্গণে ১৩২ বছরের পুরাতন লাইব্রেরীটি উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট সমাজ সেবক আয়েশা বেগম।

এতে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন কাড়াপাড়ার কৃতি সন্তান চাঁদপুর জেলার পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শেখ বশিরুল ইসলামের (সভাপতি, কুমুদ বাসিনী পাবলিক লাইব্রেরী) সভাপতিত্বে ও দিদারুল আলমের (সাধারণ সম্পাদক,কুমুদ বাসিনী পাবলিক লাইব্রেরী)।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সরদার নাসির উদ্দিন, (চেয়ারম্যান, সদর উপজেলা পরিষদ)। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রিজিয়া পারভীন, (মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, সদর উপজেলা পরিষদ), আহাদ উদ্দিন হায়দার, (সভাপতি, বাগেরহাট প্রেসক্লাব), শেখ আক্তারুজ্জামান বাচ্চু, (চেয়ারম্যান, ষাট গম্ভুজ ইউনিয়ন পরিষদ), এম এ মতিনসহ (চেয়ারম্যান, যাত্রাপুর ইউনিয়ন পরিষদ) প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, বই মানুষের সবচেয়ে বড় বন্ধু। লাইব্রেরী সমাজ উন্নয়নের বাহন। একটি জাতির মেধা, মনন, ইতিহাস ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির ধারণ ও লালন পালনকারী হিসেবে লাইব্রেরী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

সর্বসাধারণের মধ্যে জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে লাইব্রেরীর সুদূরপ্রসারী ভূমিকা রয়েছে। গণতন্ত্রের সাফল্যে লাইব্রেরীর ভূমিকা গণমাধ্যমের চেয়ে কম নয়। আধুনিক বিশ্বে লাইব্রেরীর প্রয়োজনীয়তা দিনে দিনে বাড়ছে।

লাইব্রেরী সকলের জন্য উন্মুক্ত। ধর্মীয় সাম্প্রদায়িকতা নেই এখানে, নেই হানাহানি, বিবাদ। সুতরাং জাতির মর্যাদাবোধের উন্নয়নে গ্রামবাসীর উচিত নিয়মিত লাইব্রেরীতে আসা, বই পড়া এবং সমাজ গঠনে সহায়ক জ্ঞানার্জন করার মাধ্যমে আলোকিত সমাজ গড়ে তোলা।

 

নাবা/ডেস্ক/হাফিজ

এখানে বিজ্ঞাপন দিন

0 মন্তব্য

মতামত দিন